ফাগুনের আগুনরাঙা বসন্তে মেতেছে রাজশাহীবাসী

0
42

গ্রীনসিটি ডেস্ক:

বসন্ত এসেছে বলেই ‍ফুটেছে হাজারও ফুল। বইতে শুরু করেছে দক্ষিণা বাতাস। কোকিলের কুহুতানে মাতাল হয়ে উঠেছে বসন্তরাণী।হৃদয়ে ফুটেছে ভালোবাসার স্পন্দন।

বাংলার রূপময় নিসর্গ ছুঁয়েছে হলুদিয়া রঙ। কারণ আজ পহেলা ফাল্গুন। সবুজ বাংলার ষড়ঋতুর দেশের শেষ ঋতুর প্রথম দিন। দুয়ারে আগুন রাঙা বসন্ত দেখে তাই আজ সবার মন যেন ছুটে যেতে চাইছে অরণ্যে যেখানে কাননে কাননে উৎসবের রঙের কোলাহলে মেতে উঠেছে চারদিক।

তাইতো বসন্তী উৎসবে আজ মেতে উঠেছে পদ্মাপাড়ের রাজশাহী। বাঁধ ভাঙা আনন্দ, উচ্ছ্বাস ও উদ্বেলতায় নানা আয়োজনে সবাই ঋতুরাজকে সাড়ম্বরে বরণ করে নিচ্ছে।

মঙ্গলবার পহেলা ফাল্গুন সকাল থেকেই বসন্ত বরণ উৎসবে মুখোরিত হয়ে উঠেছে নদীর তীরে গড়ে ওঠা উত্তরের এই প্রাচীন নগর। ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সব শ্রেণীর মানুষ ভিন্ন আবহে প্রাণ উজাড় করে যোগ দিয়েছেন বসন্ত বরণ উৎসবে।

পুরো শহরে যেন জানান দেয় বসন্ত এসে গেছে। শোভাযাত্রাটি মহানগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কলেজে চত্ত্বরে গিয়ে শেষ হয়।

এদিকে, বসন্ত বরণ উপলক্ষে মহানগরীর বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রে তরুণ-তরণীসহ বিভিন্ন বয়সের মানুষের ঢল নেমেছে। মেয়েদের পরনে হলুদ রঙের শাড়ি, খোপায় গাঁদা ফুল, আবার কারও কারও খোপায় রঙিন ফুলের রিং। ছেলেদের পরনে রয়েছে হলুদ অথবা সফেদ রঙের পাঞ্জাবি। বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ঘুরতে গিয়ে অনেককে ছবি তুলতে দেখা গেছে। বন্ধুদের নিয়ে জটলা করে মোবাইলে সেলফি তুলেও তা স্মৃতিবন্দি করছেন অনেক তরুণ-তরুণী।

সকাল থেকে রাজশাহীর শহীদ এ এইচ এম কামরুজ্জামান উদ্যান ও চিড়িয়াখানা, জিয়া পার্ক, বড়কুঠি পদ্মাপাড়ে, টি-বাঁধ, ভদ্রার শহীদ মনসুর রহমান পার্ক, পদ্মা গার্ডেনসহ অন্যান্য বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়। কেউ বন্ধু-বান্ধবীকে নিয়ে, কেউ প্রিয়তম, কেউ আবার পরিবার-পরিজন নিয়ে বিভিন্ন বাহনে ঘুরে বেড়াচ্ছেন শহরের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত। বিনোদন কেন্দ্রগুলো তাই রঙিন হয়ে উঠেছে।

এদিকে, দিনটি উপলক্ষে রাজশাহী আবৃত্তি পরিষদ বিকেল সাড়ে ৪টায় মহানগরীর আলুপট্টি মোড় থেকে শোভাযাত্রা বের করা হবে। পরে রাজশাহী সাধারণ গ্রন্থাগার মিলনায়তনে ঢাকবাদন, আবৃত্তি, নিবেদিত কবিতাপাঠ, গান ও নৃত্যানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদের জেলা শাখা, কবিকুঞ্জ, ধ্রুপদালোক ও রাজশাহী আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্র এতে অংশগ্রহণ করবে।

বরাবরের মতো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস; বিশেষত চারুকলা এবারও রয়েছে বসন্তের মূল আকর্ষণ। প্রতি বছরের মতো এবারও সেখানে বেজে উঠেছে নতুন প্রাণের স্পন্দন। এছাড়া রাজশাহী কলেজ ক্যাম্পাসেও লেগেছে বাসন্তী উৎসবের ঢেউ।

শীতের শুকনো পাতার মড় মড় শব্দে উৎসাহ উদ্দীপনায় শিক্ষক-শিক্ষিকা, বন্ধু আর সহপাঠীদের নিয়ে সবাই আনন্দে মেতে উঠেছেন প্রাণের ক্যাম্পাসে।

পয়লা ফাল্গুন উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজশাহী কলেজ থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ মুহা. হবিবুর রহমান শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন। এতে কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

বাদ্য-বাজনার ছন্দে ছাত্রীদের হলুদ শাড়ি আর ছাত্রদের হলদে পাঞ্জাবি বরণে বাসন্তী শোভাযাত্রাটি কলেজ আয়োজন করেছে।