বুলবুলকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীদের একতাবদ্ধ হওয়ার নির্দেশ মিনুর

0
44

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বিএনপি চেয়ারপার্সনের অন্যতম উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেছেন, এই সরকারের আমলে রাজশাহীতে কোন উন্নয়ন হয়নি। এই সরকার নগরবাসীকে ধোকা দিয়েছে। রাজশাহীর উন্নয়নের জন্য আগামী ৩০ তারিখ সিটি নির্বাচনে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী বুলবুলকে বিজয়ী করতে নেতাকর্মীদের একতাবদ্ধ ও সকল বাধা অতিক্রম করে মাঠে থেকে প্রচারণা পরিচালনা করার নির্দেশ দেন। সেইসাথে নির্বাচনকালীন সময়ের জন্য সেন্টার কমিটি গঠন করার পরামর্শ প্রদান করেন তিনি।

আজ রোববার মতিহার থানা বিএনপি’র আয়োজনে ভদ্রা আবাসিক এলাকা মিজানুর রহমান মিনুর বাসায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আর বলেন, এই সরকারের আমলে রাজশাহীতে কোন উন্নয়ন হয়নি। এই সরকার নগরবাসীকে ধোকা দিয়েছে। রাজশাহীতে যত উন্নয়ন যেমন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, হাসপাতাল ১০০০ শয্যায় উন্নিতকরণ, আধুনিক রেলওয়ে ষ্টেশন নির্মান, আধুনিক মসজিদ নির্মান, মন্দির সংস্কার , পলিটেকনিক্যাল স্থাপন, রাস্তা, বিদ্যুৎ সংযোগ এবং নিরিবিচ্ছন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা ও পানি এবং পয়নিস্কাশনের জন্য প্রসস্থ ড্রেন নির্মান সহ নানাবিধ উন্নয়ন বিএনপি’র আমলে হয়েছে। এছাড়াও নগরীকে সবুজে আচ্ছন্ন করার ক্ষেত্রেও বিএনপি এককভাবে দাবীদার বলে তিনি বক্তৃতায় উল্লেখ করেন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মতিহার থানা বিএনপি’র সভাপতি আনসার আলী। প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, সহানগর বিএনপি’র সভাপতি মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রান ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয়তাবাদী পেশাজীবী পরিষদের সভাপতি ড. শামীম ও সাধারণ সম্পাদক আনাউরুল ইসলাম।

মেয়র প্রার্থী বুলবুল বলেন, সরকার দলীয় প্রার্থী সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা কর্মচারীদের দিয়ে সাধারণ ও বিএনপি পন্থি কর্মকর্তা কর্মচারীদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। সকল কর্মচারীদের নিয়ে সম্পূর্ণ অবৈধভাবে সিটি কর্পোরেশনের হলরুম ব্যবহার করে সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামানকে ভোট প্রদান করার জন্য গতকাল সভা করেছে। অতিতে এই সিটি কর্পোরেশনে এমনটা কখনো হয়নি। সরকার দলের নেতাকর্মী নোংরা খেলায় মেতে উঠেছে। নির্বাচনী আইন তারা প্রতিনিয়ত লংঘন করছে। তপশিল ঘোষনার পরে প্রার্থীদের সকল প্রকার ব্যানার ফেস্টুন, রিফলেট নিজ খরচে নির্বাচনী এলাকা থেকে অপসারনের কথা থাকলেও আজও সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থীর পোস্টার বিভিন্ন এলাকায় রয়ে গেছে। এগুলো প্রশাসন ও পুলিশ দেখতে পায়না। তারা শুধু বিএনপি নেতাকর্মীসহ ২০দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের দেখতে পায়।

কোন প্রকার মামলা না থাকলেও তাদের গ্রেফতার করা শুরু করেছে বলে জানান। তিনি আরো বলেন, বিএনপি ও ২০ দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার বা ভয় দেখিয়ে কোন লাভ হবেনা। জীবন থাকতে রাজশাহী সিটি নির্বাচনে ভোট জালিয়াতি ও সেন্টার দখল করে ভোট প্রদান করতে দেওয়া হবেনা। এই অপকর্ম ঠেকাতে বিএনপি ও জোট এখন একতাবদ্ধ। তিনি নেতাকর্মীদের এই ভোট যুদ্ধে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান জানান।

বিএনপি নেতা মিলন বলেন, আজকের মধ্যে মতিহার থানা সেন্টার কমিটি গঠন করতে হবে। এই কমিটি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে বাড়ি বাড়ি যেয়ে ধানের শীষের জন্য ভোট চাইবে। দক্ষ, সাহসী এবং একনিষ্ট বিএনপি কর্মীকে পোলিং এজেন্ট বানাতে সাহায্য করবে। সেইসাথে কেন্দ্র যেন নিরাপদে থাকে সেদিকে কড়া নজর রাখবে। ভোট প্রদান থেকে শুরু করে ভোট গণণা ও ঘোষনা পর্যন্ত তারা কেন্দ্রে পাহারা দারের ন্যায় কঠোর ভাবে পাহারা দেবে বলে তিনি বক্তৃতায় উল্লেখ করেন।

সভা পরিচালনা করেন মতিহার থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক।

অন্যদের মধ্যে মতিহার থানা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক খাজদার আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোখতার হোসেন, ২৮নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি আসলাম উদ্দীন, ৩৫নং ওয়ার্ড সভাপতি দেলওয়ার হোসেন, ৪নং ওয়ার্ড সভাপতি নাজমুল, ৩২ নং ওয়ার্ড সভাপতি রাব্বান, ৩৩নং ওয়ার্ড সভাপতি আব্দুল মালেক, ২৮নং পূর্ব ওয়ার্ড বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সোলাইমান আলী, ২১নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক র‌্যাপিড, ৩৩নং ওয়ার্ড বিএনপি’র বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আব্বাস আলী, ৩৫নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক রকিবুল ইসলাম ও মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন সহ মহিলা দলের নেতৃবৃন্দ, বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বিএনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবীতে চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে শক্তিশালী এবং সাংগঠনিক তৎপরতা বৃদ্ধি করার লক্ষে এবং রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ২০দলীয় জোট মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে বিজয়ী করতে করণীয় বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।

স/অ