শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩
Homeখেলাধুলাবগুড়ায় অনুশীলন ক্যাম্পে মুমিনুল-সৌম্যরা

বগুড়ায় অনুশীলন ক্যাম্পে মুমিনুল-সৌম্যরা

দীর্ঘদিন পর সচল হলো বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়াম। উত্তরবঙ্গের এই মাঠে অনুশীলন শুরু করেছে ‘বাংলাদেশ টাইগার্স’, যেখানে আছেন মুমিনুল-সৌম্যদের মতো সিনিয়র ক্রিকেটাররা।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে অনুশীলন শুরু হয়। এর আগে শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টায় মুমিনুল, সৌম্যসহ ২৩ সদস্যর একটি দল বগুড়ায় এসে পৌঁছায়।

আগামী মার্চের ১১ তারিখ জাতীয় দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। তাই এই স্টেডিয়ামের বাউন্সি কন্ডিশনে সফরের প্রস্তুতি নেবেন মুমিনুলরা। এই অনুশীলন ক্যাম্প চলবে ৭ মার্চ পর্যন্ত। জাতীয় দলের পাইপলাইনে থাকা খেলোয়াড়দের খেলার মধ্যে রাখতেই এই ক্যাম্পের আয়োজন। এ বিষয়টি নিশ্চিত করে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে স্কিল ক্যাম্পের বিস্তারিত জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে (বিসিবি) এর পরিচালক কাজী ইনাম আহমেদ।

এবারের এই প্রোগ্রামের মূল মনোযোগ থাকবে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। ওই সিরিজের জন্যই বগুড়া স্টেডিয়ামকে বেছে নেওয়া হয়েছে। সবশেষ ২০০৬ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই মাঠে একটি টেস্ট ও ওয়ানডে ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে জয়ও আসে সেবার। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের কথা মাথায় রেখে টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকের পরামর্শে বগুড়ার পিচকে ওই কন্ডিশনের মতো তৈরি করা হয়েছে। ১১ মার্চ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ খেলতে দেশ ছাড়বে টাইগাররা।

এ ক্যাম্পের হেড কোচ হিসেবে কাজ করছেন মিজানুর রহমান বাবুল। বিদেশিদের মধ্যে চম্পাকা রমানায়েকেও থাকবেন ক্যাম্পে। এছাড়া কোচিং স্টাফে থাকছেন- সাবেক ক্রিকেটার আফতাব আহমেদ, নাজমুল হোসেনরাও। স্পিন কোচ সোহেল ইসলাম, আফতাব ব্যাটিং কোচ, তালহা জুবায়ের পেস বোলিং কোচ, নাজমুল হোসেন পেস বোলিং কোচ, আশিক মজুমদার ব্যাটিং কোচ, ফয়সাল হোসেন ডিকেন্স ফিল্ডিং কোচ, কম্পিউটার অ্যানালিস্ট নাসির আহমেদ নাসু, ট্রেনার ইয়াকুব চৌধুরী, ফিজিও মুজাদ্দেদ সানি ও ম্যানেজার সজল আহেমদ চৌধুরী।

২৩ সদস্যের বাংলাদেশ টাইগার্স স্কোয়াড: মুমিনুল হক, ফজলে মাহমুদ রাব্বি, সাইফ হাসান, সাদমান ইসলাম, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, পিনাক ঘোষ, এনামুল হক বিজয়, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মোহাম্মদ মিঠুন, সৈকত আলী, জাকির হাসান, তাইজুল ইসলাম, নাজমুল ইসলাম অপু, নাহিদুল ইসলাম, নাঈম হাসান, রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ রাহী, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, আবু হায়দার রনি, কামরুল ইসলাম রাব্বি, মেহেদী হাসান রানা ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী।

স্টেডিয়াম সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ বিরতির পর বগুড়া শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে আবার ক্যাম্প আসায় স্টেডিয়ামে উইকেট, আউটফিল্ড, ইনডোর ও ড্রেসিংরুম নতুনভাবে সাজানো হয়েছে। এ ছাড়া গত বুধবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ক্যাম্প সংশ্লিষ্ট স্টেডিয়ামের সবার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এবারই প্রথমবারের মতো মাঠের সাইড উইকেটের জন্য বক্স নেটের ফ্রেমের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ক্রিকেটাররা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন সেখানে। আগের ব্যবহৃত ছেঁড়া টার্ফ (বিশেষ ধরনের কার্পেট) সরিয়ে ফেলা হয়েছে। সাজানো হয়েছে জরাজীর্ণ নেটের ইনডোরও। সাজ-সজ্জার শেষ পর্যায়ে দেওয়ালেও রং করা হয়েছে।

দেশে এখন আফগানিস্থানের সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। এরপর মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এটি শেষ হলেই সাউথ আফ্রিকার সঙ্গে টাইগারদের টেস্ট খেলা শুরু হবে। এই কারণে খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণের টাচে রাখা হচ্ছে। আর ভেন্যু হিসেবে শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামকে বেছে নেওয়া হয়েছে। কারণ দিসেবে বলা হচ্ছে, এই মাঠের উইকেটের মিল রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার মাঠের সঙ্গে। শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে ২০০৬ সালের পর আর জ্বলে ওঠেনি ফ্লাড লাইটগুলো। এই মাঠে সবশেষ ইংল্যান্ড ‘এ’ দল এসে খেলে গেছে ২০০৭ সালের মার্চ মাসে ।

শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামের ভেন্যু ম্যানেজার জামিলুর রহমান জানান, বিসিবির নির্দেশনা অনুযায়ী সব রকম প্রস্তুতি সম্পূর্ণর পর অনুশীলন শুরু করা হয়েছে।

বাংলানিউজ

সর্বশেষ সংবাদ