বুধবার, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩
Homeরাজশাহী প্রতিদিনরাজশাহীরাবি ছাত্রকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় গ্রেফতার আরো দুই

রাবি ছাত্রকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় গ্রেফতার আরো দুই

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্রকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় দুজন আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাবের সদস্যরা। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মতিহারের খোঁজাপুরের আব্দুল ওহাবের ছেলে সালাউদ্দিন বাপ্পী (২৭), একই এলাকার আজিম উদ্দিনের ছেলে নবাব শরীফ (২৭)। শুক্রবার (১১ মার্চ) দিবাগত রাতে জাহাজঘাট মােড়ে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব। শনিবার (১২ মার্চ) এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় র‌্যাব।

এর আগে গত ১৯ মার্চ  ধরমপুর পূর্বপাড়ার ‘এনআর’ ছাত্রাবাসে রাবির পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ণের ছাত্র নাকিউল হক নাকিকে (২০) মারপিট ছাড়াও ছুরিকাঘ করে পালিয়ে যান আসামিরা। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি  করা হয়। পরের দিন সকাল নাকির উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়।এই ঘটনায় আহতের বন্ধ শরীফুল ইসলাম বাদি হয়ে  রমজান ও মেস মালিক নাজমুলসহ ৭ জন আসামির নাম উল্লেখ করে  অজ্ঞাতনানা ৮ থেকে ১০ জনের বিরুদ্ধে মতিহার থানায় দায়ের করেন।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিষয়ে র‌্যাব জানায়, গ্রেফতারকৃতরা উগ্রবাদী ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে তারা বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে। সালাউদ্দীন বাপ্পী  বিনােদপুরের মসজিদ মিশন একাডেমী স্কুল থেকে মানবিক বিভাগে ২০১০ সালে এসএসসি পাস করেন। পরে বিনােদপুর ইসলামীয়া ডিগ্রি কলেজ থেকে মানবিক বিভাগে ২০১২ সালে এইচএসসি পাস করেন। রাজশাহী নিউ গভ. গর্ভমেন্ট ডিগ্রি কলেজ থেকে ভূগােল ও পরিবেশ বিদ্যা বিষয়ে ২০১৬ সালে অনার্স পাস করেন। বর্তমানে ভূগােল ও পরিবেশ বিদ্যা বিষয়ে রাজশাহী কলেজে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত।

এছাড়া আসামী নবাব শরীফ রাজশাহীর মির্জাপুর হাইস্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশুনা করেন। বর্তমানে সে কাপড়ের দোকানের কর্মচারী। তাহার অন্যান্য ৫ ভাইয়ের মধ্যে আব্দুস সালাম (৪২) নামে এক ভাই হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী ও জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) নামক এক ভাই হত্যা মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামী। সে পূর্বে উগ্রবাদী ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল।

র‌্যাব আরো জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামীরা ঘটনার সাথে তাদের জড়িত থাকার কথাটি স্বীকার করে। এই ঘটনায় ৫ থেকে ৭ জন সরাসরি জড়িত ছিল। র‌্যাবের গ্রেফতারকৃত বাপ্পি এবং নবাব ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছিল। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার চাক্ষুস বর্ণনা প্রদান করে। আসামীদের মতিহার থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

No posts to display