শনিবার, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২৩
Homeরাজশাহী প্রতিদিনরাজশাহীরাজশাহীতে আড়াই লাখ পরিবার টিসিবির কার্ডে পণ্য পাবে

রাজশাহীতে আড়াই লাখ পরিবার টিসিবির কার্ডে পণ্য পাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক:


পণ্য বিক্রির প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন আনছে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। আগের মতো যে কেউ লাইনে দাঁড়িয়ে কিনতে পারবেন না পণ্য। শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে নি¤œ আয়ের মানুষের জন্য বিশেষ কার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
রাজশাহী জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী জেলায় ২ লাখ ৫০ হাজার পরিবার পাবে টিসিবির কার্ড। এর মধ্যে রাজশাহী সিটি করপোরেশনে ১ লাখ ৫ হাজার পরিবার পাবেন টিসিবির এই কার্ড। এই কার্ডের মাধ্যমে ডিলারদের থেকে টিসিবির দেওয়া পণ্য তুলতে পারবেন ভোক্তারা।

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে সাধারণ মানুষের ভরসা হয়ে ওঠে টিসিবি। কিছুটা কম দামে পণ্য কিনতে প্রতিদিনই ট্রাকের পেছনে লম্বা লাইন হতো। অনেকেই প্রতিদিনই লাইনে দাঁড়িয়ে পণ্য কেনেন। আবার কেউ কেউ পণ্য নিয়ে আবারও লাইনে দাঁড়ান। এসব অনিয়ম দূর করে শৃঙ্খলা ফেরাতে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে টিসিবি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, যারা প্রকৃতপক্ষে টিসিবির পণ্য পাওয়ার উপযোগী তাদের তালিকা করা হয়েছে। এই তালিকা জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে করা হয়। পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে স্বল্পমূল্যে পণ্য বিক্রি করবে টিসিবি। যারা প্রকৃতপক্ষে টিসিবি’র পণ্য পাওয়ার উপযোগী, তাদের ন্যায্যমূল্যে পণ্য নিশ্চিত করতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় ফ্যামেলি কার্ড দেয়া হবে।
আব্বাস আলীসহ টিসিবির কয়েকজন ডিলার জানান, এটি সরকারের অনেক ভালো উদ্যোগ। এর ফলে আমাদের উপরে চাপ কমবে। কেননা ভোক্তারা তাদের কার্ড নিয়ে আসবেন পণ্য বুঝে নেবেন। তাতে বাড়তি সমস্যা থাকবে না।

কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) রাজশাহী জেলার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মামুন জানান, এটি একটি ভালো উদ্যোগ। ফলে জটিলতা থাকবে না। যারা প্রকৃতপক্ষে টিসিবির পণ্য পাওয়ার উপযোগী তারাই পাবেন। তার পরেও মনিটরিং দরকার।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সচিব মশিউর রহমান জানান, রাসিকের ৩০টি ওয়ার্ডে কার্ড তৈরির কাজ সম্পন্ন হয়েছে। প্রথম অবস্থায় ৩০টি ওয়ার্ডের ৫৫ হাজার পরিবার এই সুবিধা পাবেন। কার্ডধারীরা আগামী ২০ মার্চ থেকে পণ্য তুলতে পারবেন। তিনি বলেন, ওয়ার্ডের ভোটারের ভিত্তিতে কার্ড করা হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে ১ হাজার ৮৩৩টি করে কার্ড পাবে মানুষ।

টিসিবি রাজশাহীর অফিস প্রধান শাহিদুল ইসলাম জানান, ‘প্রথম পর্যায়ে কার্ডধারীরা দুই কেজি করে চিনি, মসুরের ডাল ও সয়াবিন তেল পাবেন। দ্বিতীয় পর্যায় রমজান মাসের আগেই ছোলা যোগ হবে। তাতে ভোক্তারা এই পণ্যগুলো কিনতে পারবেন।’

সর্বশেষ সংবাদ