শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩
Homeরাজশাহী প্রতিদিনঅনলাইনে বিক্রি বন্ধ: রাজশাহী রেল স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড়

অনলাইনে বিক্রি বন্ধ: রাজশাহী রেল স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক:

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট বিক্রি বন্ধ। তাই রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন ছিল কাউন্টারগুলোতে। টিকিট প্রত্যাশীদের অভিযোগ কাউন্টার থেকে দ্রুত দেওয়া হচ্ছে না টিকিট। রোববার (২০ মার্চ) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে স্টেশনে গিয়ে দীর্ঘ লাইনে থাকতে দেখা গেছে টিকিট প্রত্যাশীদের। এনিয়ে রাজশাহী রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে- টিকিট অনলাইনে বিক্রি করা হচ্ছে না। সব টিকিট হাতে লেখতে (ম্যানুয়াল পদ্ধতি) হচ্ছে। তাই একটু সময় বেশি লাগছে।

রেলওয়ে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে- আগামী ২৬ মার্চ থেকে রেলওয়ের টিকিটিংয়ের দায়িত্ব নেবে সহজ লিমিটেড। নতুন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব গ্রহণের সুবিধার্থে ২১ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত পাঁচ দিন অনলাইনে টিকিট বিক্রি বন্ধ থাকছে। এসময় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে স্টেশনের কাউন্টার থেকে শতভাগ টিকিট ইস্যু করা হবে।

প্রথম দিন রোববার (২০ মার্চ) দেওয়া হচ্ছে ২১ মার্চের অগ্রিম টিকিট, ২১ মার্চ দেওয়া হবে ২২ মার্চের অগ্রিম টিকিট, ২২ মার্চ দেওয়া হবে ২৩ মার্চের টিকিট, ২৩ মার্চ দেওয়া হবে ২৪ মার্চের টিকিট এবং ২৪ মার্চ দেওয়া হবে ২৫ মার্চের অগ্রিম টিকিট এবং আগামী ২৬ মার্চ থেকে আগের নিয়মে ট্রেনের টিকিট ব্যবস্থাপনার কাজ করবে সহজ লিমিটেড।

টিকিট প্রত্যাশী কামাল হোসেন জানান, অনলাইনে টিকিট না পেয়ে স্টেশনে এসেছি। সকাল থেকে দুপুর হয়ে গেলে; তবুও টিকিট কিনতে পারেনি। কারণ লাইনে অনেক মানুষ। আর টিকিট বিক্রিতে ধীর গতি। কাউন্টার থেকে আস্তে আস্তে টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে।  এর ফলে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে টিকিটের জন্য।

সাইফুল ইসলাম নামের আরেক  টিকিট প্রত্যাশী জানান, সকাল ছয়টার দিকে এসেছি। এইতো কিছুক্ষণ আগে ২১ মার্চের অগ্রিম টিকিট কিনতে পারলাম। অনেকেই লাইনে না দাঁড়িয়ে সাইট (পাশে) থেকে টিকিট নেওয়ার চেষ্টা করছে। এনিয়ে সাড়ে ১১টার দিকে কয়েকজনের সাথে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেছে। তিনি বলেন, এই বিষয়গুলো রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে গুরুত্বসহকারে দেখা দরকার।

এবিষয়ে রাজশাহী রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজার আব্দুল করিম জানান, ২১ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত পাঁচ দিন অনলাইনে টিকিট বিক্রি বন্ধ রাখা হছে। নতুন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব গ্রহণের সুবিধার্থে এই টিকিট বিক্রি বন্ধ থকেবে। তিনি জানান, সব টিকিট হাতে লেখে (ম্যানুয়াল পদ্ধতি) বিক্রি করতে হচ্ছে; একটু সময় বেশি লাগছে।

সর্বশেষ সংবাদ