ঢাকাসোমবার , ১৭ অক্টোবর ২০২২
  • অন্যান্য

জেলা পরিষদ নির্বাচন নিবিড় পর্যবেক্ষণে ইসি

অক্টোবর ১৭, ২০২২ ১২:৪৬ অপরাহ্ণ । ৮৯ জন

জেলা পরিষদ নির্বাচন নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

নির্বাচন ভবনের নির্বাটন মনিটরিং সেল থেকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালসহ অন্য নির্বাচন কমিশনাররাও ভোট পর্যবেক্ষণ করছেন। সোমবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে, টানা চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। তবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কোনো অনিয়ম ধরা পড়েনি ইসির পর্যবেক্ষণে।

তিন পার্বত্য জেলা বাদে ৬১টি জেলা পরিষদে নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। তবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নোয়াখালী জেলা পরিষদ নির্বাচন আদালত কর্তৃক স্থগিত করা হয়েছে। ভোলা ও ফেনী জেলার প্রার্থীরা সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এই অবস্থায় ৫৭টি জেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে চেয়ারম্যান পদে ৯২ জন, সদস্য পদে ১ হাজার ৪৮৫ জন ও সংরক্ষিত পদে ৬০৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচন মোট ভোটার রয়েছেন ৬০ হাজার ৮৬৬ জন।

তারা ৪৬২টি ভোটকেন্দ্রের ৯২৫টি ভোটকক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন। একটি জেলায় যতগুলো স্থানীয় সরকার রয়েছে, সেগুলোর প্রতিনিধিরাই ভোট দিয়ে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত সদস্যদের নির্বাচিত করবেন।

নির্বাচনে ২৬ জন চেয়ারম্যান, ১৮ জন মহিলা সদস্য এবং ৬৫ জন সাধারণ সদস্য বিনা প্রতিদ্বদ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলা পরিষদ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে জেলা প্রশাসক ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করছেন। আর প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারের দায়িত্বে রয়েছেন অন্যান্য নির্বাচন কর্মকর্তারা।

তবে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে পক্ষপাতের অভিযোগ থাকায়, তাকে পরিবর্তন করে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।- বাংলানিউজ