ঢাকাশুক্রবার , ২৫ নভেম্বর ২০২২
  • অন্যান্য

রাজশাহী শহরের পরিচ্ছন্নতা-উন্নয়ন ও সৌন্দর্য্যে মুগ্ধতা প্রকাশ

নভেম্বর ২৫, ২০২২ ৭:৩৬ অপরাহ্ণ । ৯১ জন

রাজশাহী মহানগরীর পরিচ্ছন্নতা, উন্নয়ন ও সৌন্দর্য্যে মুগ্ধ হয়েছেন- দেশবরেণ্য গুণীজনেরা। গুণীজন সংবর্ধনা শেষে তারা মহানগরী ঘুরে দেখেছেন। জানিয়েছেন তাদের মুগ্ধতার কথা।

শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে মহানগরীর টি-বাঁধ ও পদ্মা নদীতে নৌভ্রমণ করেন সংবর্ধিত গুণীজনরা।

তাদের মধ্যে ছিলেন- আইন কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক, আইন কমিশনের সদস্য বিচারপতি এটিএম ফজলে কবীর, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ, লেখক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান, প্রখ্যাত সাংবাদিক, কলামিস্ট ও লেখক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবেদ খান এবং শিক্ষাবিদ, নাট্যকার ও লেখক অধ্যাপক রতন সিদ্দিকী। তাদের সঙ্গে ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক বলেন, রাজশাহীতে ২০১৫ সালে একবার এসেছিলেন। এবার এসে দেখছেন আমূল পরিবর্তন। রাজশাহীর দৃশ্যমান এই উন্নয়ন প্রমাণ করে সঠিক নেতৃত্বেই রাজশাহীসহ পুরো দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান বলেন, রাজশাহী সবুজে বিবর্তিত। নিজ চোখে দেখে যেতে পারলেন কী করে একটি মহানগর জীবন্ত ও সজীব হয়ে ওঠছে। রাজশাহী সবুজ ও গণমুখী মহানগর হিসেবে গড়ে উঠছে। জীবন আর শিক্ষা কখনো আলাদা হতে পারে না। রাজশাহী আদী শিক্ষা মহানগরী। এখন এর সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে পরিকল্পিত আধুনিকতাও।

May be an image of 9 people and people standing

শিক্ষাবিদ, নাট্যকার ও লেখন অধ্যাপক রতন সিদ্দিকী রাজশাহীকে প্রশান্তির মহানগরী উল্লেখ করে বলেন, ১৮৯২ এর নভেম্বরে রাজশাহী শহরে এসেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। এরপর ১৯২৮ সালে আরেকবার আসেন তিনি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন কাজী নজরুল ইসলাম। তিনি যতবার রাজশাহীতে এসেছেন ততবার তিনি রাজশাহীর নদী-প্রকৃতি দেখে মুগ্ধ হয়েছেন, তার মন ভালো হয়ে গেছে। রাজশাহীর ঐতিহ্যেও সঙ্গে জুড়ে রয়েছে শিক্ষানগরীর খেতাব। অক্ষয়কুমার মৈত্রেয় রাজশাহীর সন্তান। ইতিহাস ঐতিহ্যের মহানগরী রাজশাহী। এই শহরে যে একবার এসেছে সে আর ফিরে যেতে পারেনি। শহরের প্রেমে তারা পরিবার নিয়ে এখানেই বসত গড়ে তুলেছেন। এই ভূমিতে জন্মেছেন রাজশাহীর কৃতি সন্তান শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান হেনা। রাজশাহীকে বিশ্বদরবারে তুলে ধরতে এই মানুষটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন।

Paris