ঢাকাসোমবার , ৬ মার্চ ২০২৩

রাজশাহীতে কনস্টেবল পিটিয়ে গ্রেফতার ১২ খেলোয়াড়ের মধ্যে ৫ জনের জামিন

মার্চ ৬, ২০২৩ ৫:৩৪ অপরাহ্ণ । ৯৪ জন

শেখ কামাল বাংলাদেশ যুব গেমস থেকে ফেরার পথে রাজশাহী রেল স্টেশনে পুলিশ কনস্টেবল দম্পতির ওপর হামলার ঘটনায় করা মামলায় পাঁচ খেলোয়াড়ের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত।  বয়স ১৮ বছরের কম হওয়ায় তাদের জামিন মঞ্জুর করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

সোমবার (৬ মার্চ) দুপুরে রাজশাহীর নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতের বিচারক মোহা. হাসানুজ্জামান তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

একই মামলায় বাকি সাতজন খেলোয়াড়কে আসামি হিসেবে রোববার (৫ মার্চ) রাতেই আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মাইনুর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  তিনি জানান, মামলায় জামিন পেয়েছে হাজরাপুকুর ডাবতলা এলাকার আব্দুল আল জাহিদ (১৬), নিউ কলোনি এলাকার ফারহানা খন্দকার (১৭), কয়েরদাড়া এলাকার রিমি খানম (১৭), বড় বনগ্রাম রায়পাড়া এলাকার জেমি আক্তার (১৪), এবং মহানগরীর শাহ মখদুম থানার মোড় এলাকার বৃষ্টি মণি (১৬) ।

কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন – রাজশাহী মহানগরীর পাচানি মাঠ এলাকার আলী আজম (১৯), হাজরাপুকুর ডাবতলা এলাকার আকাশ আলী মোহন (২০), জিন্নানগর এলাকায় আহসান কবীর (৪৫),  জেলার মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট এলাকার খাদিজা খাতুন (১৮), রাজশাহী মহানগরীর বখতিয়ারবাদ মালদা কলোনি এলাকার পাপিয়া সারোয়ার পূর্ণিমা (১৯), ছোটবনগ্রাম উত্তরপাড়ার দিপালী (১৯), বড় বনগ্রাম রায়পাড়া এলাকার সাবরিনা আক্তার (১৯) এবং হাজরাপুকুর ডাবতলা এলাকার রমজান (১৯)।

রোববার সন্ধ্যায় রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেন থেকে প্লাটফর্মে নামার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুব খেলোয়াড়দের হামলায় আহত হন এক পুলিশ কনেস্টবল ও তার স্ত্রী। ওই পুলিশ সদস্যের নাক ফেটে যায়। ট্রেন থেকে নামার পরপরই রেলওয়ে থানা পুলিশ ১২ জন খেলোয়াড়কে আটক করে। পরে রমজান নামে বাকি একজনকে গ্রেফতার করা হয়।

ওই হামলার ঘটনায় পুলিশ সদস্যের স্ত্রী বাদী হয়ে রাজশাহী রেলওয়ে থানায় ১৩ জন খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় ১৩ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

ঘটনার বিষয়ে আসামি পক্ষের পরিবারগুলোর দাবি, ওই পুলিশ সদস্যই আগে এক খেলোয়াড়কে চড় মেরেছিলেন। তারপরই ঘটনার সূত্রপাত। এরপর বিষয়টি রেলওয়ে থানায় নিয়ে মীমাংসা করার কথা ছিল। কিন্তু পুলিশ সদস্যের স্ত্রী খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে মামালা দায়ের করেন।

তবে রাজশাহী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোপাল কুমার বলেন, কোনো কিছুই আইনের বাইরে করা হয়নি। পুরো বিষয়টি পুলিশ সদর দপ্তরকে জানিয়ে তারপরই মামলা নেওয়া হয়েছে। আর ওই খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে মাত্র। বর্তমানে ঘটনাটির তদন্ত চলছে।

Paris