ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২৩ মার্চ ২০২৩
  • অন্যান্য

চট্টগ্রাম-৮ নির্বাচন: ডাকযোগে ভোটের ব্যবস্থা নিতে বলল ইসি

মার্চ ২৩, ২০২৩ ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ । ৮১ জন

আসন্ন চট্টগ্রাম-৮ আসনের (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) উপ-নির্বাচনে ডাকযোগে ভোটের ব্যবস্থা নিতে রিটার্নিং কর্মকর্তাকে নির্দেশনা দিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান জানিয়েছেন, আইনে নির্ধারিত উপায়ে ডাকযোগ ভোটের ব্যবস্থা করতে ইতোমধ্যে নির্দেশনাটি রিটার্নিং কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে।

ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পোস্টাল ব্যালটে ভোট দিতে হলে কোনো চাকরিজীবিকে অবশ্যই নির্বাচনী দায়িত্বপ্রাপ্ত হতে হবে। এছাড়া তার দায়িত্বপ্রাপ্ত এলাকা বা ভোটকেন্দ্র যদি তার নিজের ভোটকেন্দ্রের বাইরে হয়, তবেই এ সুযোগ পাবেন। এছাড়া যারা প্রবাসী বাংলাদেশি তাদের জন্যও এ সুযোগ বরাবরই থাকছে।

এ সুযোগটি নিতে হলে যথাযথ কারণ ও তার প্রমাণ দেখিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে আবেদন করতে হবে। রিটার্নিং কর্মকর্তা সেটি বিবেচনা করে ডাকযোগে ব্যালট পাঠাবেন। ভোট দেওয়ার পর সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি আবার তা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে ডাকযোগে ফেরত পাঠাবেন।

এ বিষয়ে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে বলা হয়েছে- কোনো ব্যক্তি যে ভোটকেন্দ্রে ভোট দেওয়ার অধিকারী, সে কেন্দ্র ছাড়া অন্য কোনো ভোটকেন্দ্রে নির্বাচন সংক্রান্ত দায়িত্ব পালনের জন্য নিযুক্ত থাকলে এবং বাংলাদেশি ভোটার হিসেবে বিদেশে অবস্থান করলে পোস্টাল ব্যালটের মাধ্যমে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে ‘সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের আবেদনের ভিত্তিতে রিটার্নিং কর্মকর্তা তাদের কাছে ডাকযোগে পোস্টাল ব্যালট পাঠাবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা যাতে অগ্রিম ডাক মাশুল পরিশোধ না করে দেশের ও বিদেশের বিভিন্ন স্থানে পোস্টাল ব্যালট ডাকযোগে প্রেরণ করতে পারেন এবং ভোটাররাও যাতে ওই সুযোগ গ্রহণ করতে পারে তার নিশ্চিয়তা দেবে ডাক বিভাগ। ’

ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, এ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ২৭ মার্চ। মনোনয়নপত্র বাছাই ২৯ মার্চ। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ৫ এপ্রিল। প্রতীক বরাদ্দ করা হবে ৬ এপ্রিল। আর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৭ এপ্রিল। নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন চট্টগ্রাম অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর একটি হাসপাতালে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমদ মৃত্যুবরণ করেন। এরপর আসনটি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। পরবর্তীতে আসন শূন্য ঘোষণার গেজেট ইসিতে এলে নির্বাচনের দিনক্ষণ ঠিক করে কমিশন।

এ আসনটি এর আগেও একবার শূন্য হয়েছে ২০১৯ সালে। মহাজোটের শরিক হিসেবে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ নেতা মইন উদ্দিন খান বাদল ২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচিত হন। কিন্তু তিনি ২০১৯ সালের ৭ নভেম্বর মৃত্যুবরণ করেন। পরবর্তীতে ২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারির উপ-নির্বাচনে জয়ী হয়ে সংসদে এসেছিলেন মোছলেম উদ্দিন আহমদ।-বাংলানিউজ