ঢাকারবিবার , ১৬ এপ্রিল ২০২৩
  • অন্যান্য

সেফ হোমে থাকা অভিভাবকহীন লাভলী পেলো নতুন পরিবার

এপ্রিল ১৬, ২০২৩ ৫:২৯ অপরাহ্ণ । ৬৪ জন

ইফতারের আগেই সুসজ্জিত ভাবে পড়ানো হলো বিয়ে। অতিথিদের আপ্যায়নের জন্য সাজানো প্যান্ডেল, আর দাওয়াতে আসা অতিথিদের পোশাকের চাকচিক্য হাঁসি মুখ।
সব মিলিয়ে রাজশাহীর নারী ও শিশু-কিশোরী হেফাজতিদের নিরাপদ আবাসন (সেফ হোম) কার্যালয়টি হয়ে উঠল বিয়ে বাড়িতে। সকল বয়সী মানুষের সাথে ইফতারের দাওয়াতে অংশ নিলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক, ম্যাজিস্ট্রেট, সমাজসেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।
রাজশাহীর বায়া সেফ হোমের বাক প্রতিবন্ধী ও অভিভাবকহীন লাভলী খাতুনকে নীলফামারী থেকে ২০১০ সালে উদ্ধার করেছিল পুলিশ। দীর্ঘ ১৩ বছর থেকে সেফহোম শেষ করে নতুন সংসার জীবনে ফিরলো অভিভাবকহীন লাভলী খাতুন।
শনিবার বিকেলে রাজশাহীর সেফ হোমে বিয়ের আসরের মোনাজাতে নবদম্পত্তির জন্য শুভ কামনা করে রাজশাহী জেলা প্রশাসক শামীম আহমেদসহ দায়িত্বরতরা।
রাজশাহী জেলা প্রশাসক বলেন, এটি একটি মানবিক কাজ। যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বিয়ের ব্যবস্থা করার অনুমতি প্রদান করা হয়। আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করার জন্য আদালতে তাদের জামিন নিতে হয়। লাভলী খাতুনের সঙ্গে হাবিব পারিবারিক বন্ধনে আবদ্ধ হল। নতুন পরিবার পেলো।
রাজশাহী নগরীর বড়বনগ্রাম দুরুলের মোড় এলাকার হাবিব সাথে (৪২) এর সাথে অভিভাবকহীন লাভলীর বিয়ে হয়। স্বামী রাজশাহী শহরে অটোরিকশা চালাক। গত দুই বছর আগে তার আগের স্ত্রী মারা গেছেন। সংসারের তিন ছেলের মতামত নিয়ে ১ লাখ টাকায় দেনমোহরে বিয়ে করলেন তিনি। বিয়েতে অতিথিসহ প্রায় ১০০ মানুষকে দাওয়াতে অংশ নেয়।
এ সময় রাজশাহী পুলিশ সুপার (এসপি) মাসুদ হোসেন সহ প্রশাসনের দায়িত্বরতরা উপস্থিত ছিলেন।

Paris