ঢাকামঙ্গলবার , ২৫ জুলাই ২০২৩

রাজশাহীতে যুবককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় মূল আসামি-সহ গ্রেফতার ২

জুলাই ২৫, ২০২৩ ৭:০০ অপরাহ্ণ । ৬৮ জন

রাজশাহীতে যুবককে পিটিয়ে হত্যা করার ঘটনায় মূল আসামি-সহ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে আরএমপি’র পবা থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মো: রাসেল রানা (৩৪) ও মো: রিপন( ২২)। রাসেল রাজশাহী মহানগরীর পবা থানার মাধাইপাড়ার মো: গোলামের ছেলে ও রিপন একই এলাকার মো: কসিমের ছেলে।

আজ মঙ্গলবার আরএমপির এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, রাজশাহীর পবা থানার তালাগাছী গ্রামের সাথে মাধাইপাড়া ও বীর গোয়ালিয়া গ্রামের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিবাদ ছিলো। গত ২৯ জুন বিকাল সাড়ে ৪ টায় বীর গোয়ালিয়া গ্রামের হাকুর ছেলে জনি তার স্ত্রীকে নিয়ে তালগাছি গ্রামের ব্রিজের কাছে বেড়াতে যাওয়ার সময় তালগাছী গ্রামের জীবন ও জাকিরের মোটরাসাইকেলের সাথে জনির ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। তাৎক্ষণিক স্থানীয় লোকজন বিষয়টি মীমাংসাও করে দেন।

পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃতরা-সহ মাধাইপাড়া গ্রামের আরও ১৫-১৬ জন ওই দিন সন্ধ্যা  টায় পূর্ব বিবাদের জের ধরে তালগাছী ব্রিজের কাছে এসে জীবন ও জাকিরকে খুঁজতে থাকে। এসময় তালগাছী গ্রামের মো: ইসরাফিলের ছেলে রাব্বি (২২)কে একা পেয়ে আসামিরা বাঁশের লাঠি-সহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মারপিট করে মুমুর্ষ অবস্থায় ফেলে রেখে চলে যায়। এরপর স্থানীয় লোকজন রাব্বিকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরের দিন অর্থাৎ ৩০ জুন বেলা ১১ টায় রাব্বি মারা যায়। রাব্বির পিতা মো: ইসরাফিলের এমন অভিযোগে পরিপ্রেক্ষিতে পবা থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু হয়।

মামলা রুজু পরবর্তীতৈ পবা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মো: মোবারক পারভেজ, তদন্তকারী কর্মকতা এসআই মো: শামীম হোসেন ও তার টিম আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেন।

পরবর্তীতে পবা থানা পুলিশের ওই টিম আজ ২৫‌শে জুলাই বিকাল সাড়ে ৪টায় আরএমপি’র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের দেওয়া তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজপাড়া থানার আলীগঞ্জে অভিযান পরিচালনা করে রাসেল ও রিপনকে গ্রেফতার করে।

আসামিদ্বয় ঘটনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত আছে বলে ভিডিও ফুটেজে প্রমাণ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর তারা পলাতক থেকে আজ আদালতে আত্মসমর্পণের জন্য আজ রাজশাহীতে এসেছিল। তাদেরকে আগামীকাল বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে এই মামলায় আরও ৪ জন সন্ধিগ্ধকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এজাহার নামীয় অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে বলেও জানানো হয়।

Paris