ঢাকামঙ্গলবার , ২৫ জুলাই ২০২৩
  • অন্যান্য

রাণীনগরে সিএনজি-মোটরসাইকেল সংঘর্ষ: শিশুর পর মারা গেলেন মোটরসাইকেল চালকও

জুলাই ২৫, ২০২৩ ৬:৩০ অপরাহ্ণ । ৯৮ জন

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি:
নওগাঁর রাণীনগরে সিএনজি-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে শিশুর পর মারা গেছেন মোটরসাইকেল চালক। সিএনজির যাত্রী শিশু হুমাইরা খাতুন ঘটনারদিন সোমবার সকালে নওগাঁ সদর হাসপাতালে মারা যান। আর মোটরসাইকেল চালক মোয়াজ্জেম হোসেন বগুড়া মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে মারা গেছেন।

এনিয়ে দুর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দুইজনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৪ জন।

এর আগে সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার রাণীনগর-আবাদপুকুর সড়কের সোনাকানিয়া ব্রিজ এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহত সিএনজি যাত্রী শিশু হুমাইরা খাতুন (৪) জেলার ধামইরহাট উপজেলার চৌঘাট গ্রামের হাফিজুর রহমানের মেয়ে। অপরজন মোটরসাইকেল চালক রাণীনগর উপজেলার লোহাচুড়া গ্রামের বাসিন্দা একটি মসজিদের ইমাম মোয়াজ্জেম হোসেন (৫২)।

আহতরা হলেন, উপজেলার লোহাচুড়া গ্রামের সিএনজি চালক লেবু হোসেন (৫০), গুয়াতা এলাকার মোসারব হোসেন (২৮), কালীগ্রামের সাব্বির (১৬) ও সাব্বিরের মা সালমা (৪৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাণীনগর থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, এদিন সকালে সিএনজিটি যাত্রী নিয়ে আবাদপুকুর থেকে রাণীনগর আসছিল। একই সঙ্গে মোটরসাইকেলটিও রাণীনগরের অভিমূখে রওনা দেয়। পথে মধ্যে রাণীনগর-আবাদপুকুর সড়কের সোনাকানিয়া জোরা ব্রিজ এলাকায় পৌঁছালে সিএনজি একটি ব্রিজ দিয়ে এবং মোটরসাইকেল অপর ব্রিজ দিয়ে সড়কে নামার সময় সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় সিএনজিটি যাত্রী নিয়ে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। আর মোটরসাইকেল চালক সড়কে ছিটকে পড়েন।

এতে সিএনজির যাত্রী, চালকসহ ৫ জন ও মোটরসাইকেল চালক আহত হন। এ সময় স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে গুরুত্বর আহত সিএনজি চালক লেবু, সিএনজির যাত্রী শিশু হুমাইরা ও মোটরসাইকেল চালক মোয়াজ্জেমের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশু হুমাইরা মারা যায়।

আর উন্নত চিকিৎসার জন্য সিএনজি চালক লেবুকে রাজশাহী মেডিকেলে ও মোটরসাইকেল চালক মোয়াজ্জেমকে বগুড়া মেডিকেলে পাঠানো হয়। বগুড়ায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটরসাইকেল চালক মোয়াজ্জেম মারা যান।

Paris