ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২ নভেম্বর ২০২৩
  • অন্যান্য

শেষ অধিবেশনে রেকর্ড ২৫ বিল পাস

নভেম্বর ২, ২০২৩ ৮:৪১ অপরাহ্ণ । ৪৯ জন

একাদশ জাতীয় সংসদের ২৫তম ও শেষ অধিবেশনে বিল পাস হয়েছে ২৫টি। অধিবেশনটি ছিল নয় কার্যদিবসের।

তবে অধিবেশনের প্রথম দিন তিন সংসদ সদস্যের মৃত্যুজনিত কারণে শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনার পর ওই দিনের সব কাজ স্থগিত রেখে অধিবেশন মুলতবি হয়ে যায়।

পরদিন থেকে এ অধিবেশনের আট কার্যদিনে মোট ২৫টি বিল পাস করা হয় এর মধ্যে শেষ দিনেই (বৃহস্পতিবার) সাতটি বিল পাস করে বিল পাসের রেকর্ড তৈরি করল জাতীয় সংসদ। এর আগে একাদশ সংসদের ২৪তম অধিবেশনে আট দিনে ১৮টি বিল পাস হয়। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও আলোচিত বিল ছিল ‘সাইবার নিরাপত্তা বিল ও জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন বিল-২০২৩।

একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশনে পাঁচটি, দ্বিতীয় অধিবেশনে তিনটি, তৃতীয় অধিবেশনে সাতটি, চতুর্থ অধিবেশনে একটি, পঞ্চম অধিবেশনে তিনটি, ষষ্ঠ অধিবেশনে সাতটি বিল পাস হয়। সপ্তম অধিবেশনে কোনো বিল পাস হয়নি।

অষ্টম অধিবেশনে পাঁচটি, নবম অধিবেশনে ছয়টি, দশম অধিবেশনে নয়টি, ১১তম অধিবেশনে ছয়টি বিল পাস হয়। ১২তম অধিবেশনে কোনো বিল পাস হয়নি।

১৩তম অধিবেশনে সাতটি, ১৪তম অধিবেশনে নয়টি, ১৫তম অধিবেশনে নয়টি, ১৬তম অধিবেশনে একটি, ১৭তম অধিবেশনে নয়টি, ১৮তম অধিবেশনে চারটি, ১৯তম অধিবেশনে তিনটি, ২০তম অধিবেশনে চারটি, ২১তম অধিবেশনে দশটি বিল পাস হয়। ২২তম অধিবেশনে কোনো বিল পাস হয়নি, ২৩ তম অধিবেশনে ১৪টি বিল পাস হয়।

২৫তম অধিবেশন শুরু হয় গত ২২ অক্টোবর। এই অধিবেশন শুরুর আগে চলতি সংসদের তিনজন সংসদ সদস্য মারা যান। তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে অধিবেশনের প্রথম দিন মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

২৩ অক্টোবর অধিবেশন শুরু হয় বিকেল ৪টায়। ওই দিন পাস হয় দুটি বিল-  বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল (সংশোধন) বিল-২০২৩ এবং জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন বিল-২০২৩।

২৫ অক্টোবর পাস হয় দুটি বিল- বাংলাদেশ ডেইরি উন্নয়ন বিল-২০২৩ ও চিড়িয়াখানা বিল-২০২৩।

২৬ অক্টোবর পাস হয় তিনটি বিল- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (সংশোধন) বিল-২০২৩, সিলেট উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিল এবং সুরক্ষিত লেনদেন (অস্থাবর সম্পত্তি) বিল-২০২৩।

২৯ অক্টোবর পাস হয় তিনটি বিল- ঠাকুরগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় বিল-২০২৩, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শরীয়তপুর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়-২০২৩ এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সার্টিফিকেশন বিল-২০২৩।

৩০ অক্টোবর পাস হয় দুটি বিল- বাংলাদেশ পেটেন্ট বিল-২০২৩ এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট বিল-২০২৩।
৩১ অক্টোবর পাস হয় তিনটি বিল- সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (সংশোধন) বিল, কাস্টমস বিল-২০২৩ এবং জেলা (পার্বত্য চট্টগ্রাম জেলাসমূহে বলবৎকরণ) বিল।

১ নভেম্বর পাস হয় তিনটি বিল- নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক বিল-২০২৩,  ফাইন্যান্স কোম্পানি বিল-২০২৩ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জ বিল-২০২৩।

সব রেকর্ড ভেঙে চলতি একাদশ অধিবেশনের শেষ দিনে ২ নভেম্বর সর্বোচ্চ সাতটি বিল পাস হয়। বিলগুলো হলো- লক্ষ্মীপুর  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব বিদ্যালয় বিল-২০২৩,  সাতক্ষীরা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিল-২০২৩, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক শিক্ষা চিকিৎসা বিল-২০২৩,  বাংলাদেশ শ্রম (সংশোধন) বিল-২০২৩, পরিত্যক্ত বাড়ি (সম্পূরক বিধানাবলি) বিল-২০২৩, আনসার ব্যাটালিয়ন বিল-২০২৩ এবং বাংলাদেশ পুলিশ (অধস্তন কর্মচারী) কল্যাণ তহবিল বিল-২০২৩।

বাংলানিউজ