ঢাকাবুধবার , ৩ জানুয়ারি ২০২৪
  • অন্যান্য

রাজশাহী শহরের আদলে চুনারুঘাট গড়ার ইশতেহার ব্যারিস্টার সুমনের

জানুয়ারি ৩, ২০২৪ ৮:৩৪ অপরাহ্ণ । ৭৮ জন

হবিগঞ্জ-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের পক্ষে চুনারুঘাট শহরে তার সমর্থকেরা বিশাল নির্বাচনী মিছিল করেছে। মিছিল শেষে শহরের মধ্যবাজারে এক সভায় নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন তিনি।

বুধবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় শহরের বড়াইল এলাকায় ব্যারিস্টার সুমনের বাসার সামনে থেকে মিছিল শুরু হয়ে মধ্যবাজারে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় ব্যারিস্টার সুমন তার পরিবারের সবাইকে নিয়ে মঞ্চে ওঠে ভোট প্রার্থনা করেন।

ব্যারিস্টার সুমন তার বক্তব্যের শুরুতে বলেন, আজকে আমার এমপি নির্বাচনের কোনো কথা ছিল না। আমার নসিব আমাকে নিয়ে এসেছে এই নির্বাচনের জন্য। জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি স্বতন্ত্র নির্বাচন করার সুযোগ না দিতেন, তাহলে আমি আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে বিদ্রোহী হয়ে জীবনেও নির্বাচন করতাম না। আর আমি যদি ইলেকশন না করতাম, তাহলে চুনারুঘাট-মাধবপুরের ভোটারদের কোনো কাজ থাকত না।

এ সময় ব্যারিস্টার সুমন তার বক্তব্যে নির্বাচনী ইশতেহার তুলে ধরে বলেন, রাজশাহী শহরের মত চুনারুঘাট থেকে শায়েস্তাগঞ্জ পর্যন্ত রাস্তা প্রশস্ত এবং ডিভাইডারে বৃক্ষ রোপণ ও আলোকসজ্জার মাধ্যমে দৃষ্টিনন্দন করা হবে। চুনারুঘাট থেকে জগদীশপুর হয়ে মাধবপুর পর্যন্ত রাস্তা বড় করতে হবে। চুনারুঘাট ও মাধবপুর উপজেলার প্রতিটি গ্রামের কাঁচা রাস্তাকে পাঁকা ও প্রশস্ত করা হবে। চুনারুঘাটের মৃত খোয়াই নদীকে জীবিত করা হবে। এমপি নির্বাচিত হলে নিজে নেমে কচুরিপানা পরিষ্কার করে দুর্গন্ধের হাত থেকে বাঁচাব। যে-সব খাল ও পাহাড়ি ছরা যারা দখল করে রেখেছে তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। খোয়াই নদীর ওপর নতুন ব্রিজ করা হবে। চুনারুঘাট শহরে স্থায়ী স্ট্যান্ড নির্মাণ করা হবে। যাতে যত্রতত্র পার্কিংয়ের কারণে ভোগান্তি কমানো যায়। দরিদ্র শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে।

এ ছাড়া গৃহহীন ও ভূমিহীনদের বাসস্থানের ব্যবস্থা করা। নারী-শিশু নির্যাতন বন্ধ করতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সংখ্যালঘুদের জন্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হবে। বেকার তরুণ-তরুণীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হবে। প্রবাসে কোনো ব্যক্তি মারা গেলে তাদের মৃতদেহ দেশে এনে দাফনের ব্যবস্থা করা। চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নের পাশাপাশি তাদের সন্তানদের শিক্ষিত করা হবে।

নির্বাচনী সভায় ব্যারিস্টার সুমনের মাতা সৈয়দা আম্বিয়া বেগম বলেন, ৭ তারিখ আপনারা আমার ছেলেকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন। আপনাদের কাছে আমার ছেলেকে হাওলা করে দিলাম।

ব্যারিস্টার সুমনের নির্বাচনী মিছিলে ঈগল ঈগল স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে চুনারুঘাট শহর। পরে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন মাধবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ মুসলিম। এ ছাড়া বক্তব্য দেন চুনারুঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রজব আলী, মাধবপুরের বহরা ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন প্রমুখ।

ঢাকা পোস্ট