ঢাকাশনিবার , ২৫ মে ২০২৪

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে আমি রোমাঞ্চিত: আফ্রিদি

মে ২৫, ২০২৪ ৯:০০ অপরাহ্ণ । ৩৩ জন

টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নাম ঘোষণার পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন পাকিস্তান অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়েও রোমাঞ্চিত বুম বুম আফ্রিদি।

তিনি বলেন, ‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এমন একটি প্রতিযোগিতা, যা আমার হৃদয়ের খুব কাছের। উদ্বোধনী আসরে টুর্নামেন্ট সেরা হওয়া থেকে শুরু করে ২০০৯ সালে ট্রফি উঁচিয়ে ধরা, আমার ক্যারিয়ারের প্রিয় কিছু মুহূর্ত এই টুর্নামেন্টে খেলে এসেছি।

আফ্রিদি এরপর যোগ করেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরিধি ও শক্তি বেড়েছে। এবারের আসরের অংশ হতে পেরে আমি রোমাঞ্চিত, যেখানে আমরা আগের চেয়ে আরও বেশি দল, আরও বেশি ম্যাচ এবং আরও নাটকীয় লড়াই দেখতে পাব।

এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডেই ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচ নিয়ে আফ্রিদি বললেন, ৯ জুনের ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে আমি অনেক রোমাঞ্চিত।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে পাকিস্তান অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদির নাম ঘোষণা করেছে আইসিসি। এর আগে শুভেচ্ছদূত হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয়েছিল দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী ক্রিস গেইল, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৬ বলে ৬ ছক্কা মারা যুবরাজ সিং ও অলিম্পিকে আটটি সোনাজয়ী উসাইন বোল্টের নাম।

২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসরে টুর্নামেন্ট সেরা হয়েছিলেন আফ্রিদি। সেবার ব্যাট হাতে ১৯৭ স্ট্রাইক রেটে আফ্রিদি করেছিলেন ৯১ রান, আর বল হাতে নিয়েছিলেন ১২ উইকেট।

যদিও সেবার চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি পাকিস্তান, ফাইনালে তারা হারে ভারতের কাছে। তবে ২০০৯ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কাকে ফাইনালে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় পাকিস্তান। সেই টুর্নামেন্টে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল দুই ম্যাচেই সেরা খেলোয়াড় হন আফ্রিদি।

আইসিসির বিপণন ও যোগাযোগ ব্যবস্থাপক ক্লেয়ার ফুরলং বলেছেন, শহীদ ৬টি আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলেছেন, এর মধ্যে দুটিতে তিনি অধিনায়ক ছিলেন। ২০০৯ সালে ট্রফি জেতানোর বিশ্বকাপের ফাইনালে ম্যাচ সেরা হয়েছেন, অল-স্টার শুভেচ্ছাদূত দলে তার চেয়ে কে ভালো হতো!