ঢাকাসোমবার , ২৮ নভেম্বর ২০২২
  • অন্যান্য

নামি স্কুলেই পড়তে হবে, এই মানসিকতা বদলানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নভেম্বর ২৮, ২০২২ ৪:৪৭ অপরাহ্ণ । ১০২ জন

নামি স্কুলেই পড়তে হবে, এই মানসিকতা বদলানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (২৮ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এসএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ এবং ফলাফলের পরিসংখ্যান হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এই আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের বহু জ্ঞানী, বিজ্ঞানী, নেতা, পাকিস্তান আমলের বহু সিএসপি অফিসার জেলা স্কুল থেকে পাস করেই হয়েছে। এখন কোথা থেকে একটা ধারণা মাত্র কয়েকটা স্কুল- ওইসব স্কুলে না পড়লে নাকি পড়াশোনাই করা হয় না। এই যে মানসিকতা, এটা বদলাতে হবে।

তিনি বলেন, আর জেলাগুলোতে সব সময়ই খুব ভালো স্কুল ছিল। সেখান থেকেই তো আমাদের এখনো যারা আছে, বেশিরভাগই তো ওখান থেকে পাস করে আসছে। তাহলে সেই স্কুলকে খাটো করে দেখা বা দুই একটা নামের ওপরে চলা বাদ দিতে হবে।

প্রত্যেকটা স্কুলেই যেন ভালোভাবে পড়াশোনা হয় সেটা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন সরকারপ্রধান।

তিনি বলেন, সব থেকে ভালো ছেলে-মেয়েরা যেখানে ভর্তি হবে সেখান থেকে তো ভালো রেজাল্ট আসবেই। যদি কেউ গাধা পিটিয়ে মানুষ করতে পারে তাকে আমি ক্রেডিট দেই। যে কিছু জানে না তাকে শিক্ষাটা ভালো করে দিচ্ছে। যে কিছু জানে না তাকে ভালো শিক্ষা যে দিতে পারবে আমার মনে হয় তাদের একটু বিশেষভাবে সমর্থন দেওয়া, পুরস্কৃত করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভালো ভালো শিক্ষার্থী নিয়ে ভালো রেজাল্ট করা এটা তো খুব সহজ ব্যাপার। কিন্তু যারা খুব ইয়ে…তাদের যারা পাস করাতে পারে তাদেরই তো ক্রেডিটটা বেশি। আমার মনে হয় এ মানসিকতাগুলোর আমাদের একটু পরিবর্তন হওয়া একান্তভাবে দরকার।

শিক্ষায় বাংলাদেশ যেন পিছিয়ে না থাকে সরকার তা নিশ্চিত করছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, শিক্ষা ছাড়া আমরা দারিদ্র বিমোচন করতে পারি না। আমরা এমডিজি সফলতার সঙ্গে বাস্তবায়ন করেছি, এসডিজিও আমরা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। তাছাড়া আমরা এখন উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি।

তিনি বলেন, এ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা যখন আমরা পেয়েছি তখন এ উন্নয়নশীল দেশের পরিচালনা, উন্নয়নশীল দেশের যে কার্যক্রম তার জন্য আমাদের দক্ষ জনশক্তি দরকার। সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমাদের কাজ করতে হবে যেন আমরা যে অর্জনটা করেছি এটার কিছুতে আমরা পিছিয়ে না পড়ি।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের উপযোগী জনশক্তি গড়ে তোলার তাগিদ দিয়ে টানা তিনবারের সরকারপ্রধান বলেন, যখনই এই চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের শুরু হবে আমাদের দেশেও যেন আমরা সেই ধরনের দক্ষ জনবল পাই, তার জন্য এখন থেকেই শিক্ষা ব্যবস্থা আমাদের নিতে হবে।

এবার এসএসসিতে কৃতকার্যদের অভিনন্দন জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে সৃষ্ট নানা প্রতিবন্ধকতার মধ্যেও শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা অব্যাহত রাখতে পারার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ। আজকে পরীক্ষার ফলাফলে যারা পাস করবে তাদের আমি অভিনন্দন জানাই। কিন্তু যারা হয়তো পাস করতে পারেনি তাদেরও আমি বলবো তাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে।

তিনি বলেন, কেন ছেলে-মেয়েরা ফেল করবে, ফেল করার কোনো প্রশ্নই উঠে না। একটু মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে। না পড়লে তো ফেল করবেই। কাজেই এটা মাথায় রেখে সবাইকেই পড়তে হবে।

এর আগে সেখানে ২০২২ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল ফলাফল অনুলিপি এবং পরিসংখ্যান প্রতিবেদন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হয়।

প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফলাফলের সার্বিক পরিসংখ্যান তুলে ধরেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। পরে বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা নিজ নিজ বিভাগের ফলাফলের পরিসংখ্যান প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

এবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার ৮৭ দশমিক ৪৪ শতাংশ। গত বছর এ পরীক্ষায় পাসের হার ৯৩ দশমিক ৫৮ শতাংশ ছিল।

বাংলানিউজ

Paris