ঢাকারবিবার , ৫ মার্চ ২০২৩

রেকর্ড ভেঙে এমবাপ্পে বললেন, ‘আমি ইতিহাস গড়ার জন্য খেলি’

মার্চ ৫, ২০২৩ ৬:১২ অপরাহ্ণ । ১৩৬ জন

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের ম্যাচে শনিবার দিবাগত রাতে নান্টেসকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে প্যারিস সেন্ত জার্মেই। এই জয়ে ২৬ ম্যাচ থেকে ৬৩ পয়েন্ট সংগ্রহ করে মার্সেলির সঙ্গে ব্যবধান বাড়িয়েছে। ২৫ ম্যাচ থেকে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মার্সেলির সংগ্রহ ৫২ পয়েন্ট।

ম্যাচের ১২ মিনিটে লিওনেল মেসি গোল করে এগিয়ে নেন পিএসজিকে। ১৭ মিনিটে নান্টেসের হাদজাম আত্মঘাতী গোল করে ব্যবধান বাড়ান। এরপর ৩১ মিনিটে নান্টেসের লুদোভিক ব্লাস ও ৩৮ মিনিটে ইগনাটিয়াস গাংগোর গোলে ম্যাচে সমতা ফেরে।

বিরতির পর ৬০ মিনিটে দানিলো পেরেইরা গোল করে আবার এগিয়ে নেন পিএসজিকে। এরপর ৯০+২ মিনিটের মাথায় কালিয়ান এমবাপ্পে গোল পেলে ৪-২ ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পিএসজি।

এই গোলের মধ্য দিয়ে নতুন এক রেকর্ড গড়েন এমবাপ্পে। পিএসজির ইতিহাসে হয়ে যান সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। এটি ছিল ক্লাবটির হয়ে তার ২০১তম গোল। এর আগে ২০০ গোল নিয়ে এই তালিকায় শীর্ষে ছিলেন এডিনসন কাভানি। এবার তাকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠলেন ফরাসি এই স্ট্রাইকার।

পিএসজির সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ায় ম্যাচ শেষেই তার হাতে একটি ট্রফি তুলে দেওয়া হয়।

পিএসজির হয়ে গোলের রেকর্ড গড়ে ম্যাচ শেষে এমবাপ্পে বলেছেন, ‘আমি ইতিহাস গড়ার জন্য খেলি। এর আগেও বলেছি, আমি ফ্রান্সে ইতিহাস গড়তে চাই। ইতিহাস গড়তে চাই আমার দেশের রাজধানীতে, আমার শহরে, আমি আসলে সেটিই করে যাচ্ছি। সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়া অবশ্যই দারুণ কিছু। তবে আরও অনেক কিছু করা বাকি আছে।’

‘একজন জন্মগত প্যারিসিয়ান হিসেবে এটা আমার জন্য বিশেষ কিছু। যদি কেউ আমাকে বলতো যে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড পরে আজ আমি গোল করবো এবং রেকর্ড ভেঙে দিবো, তাহলো হয়তো আমি সেটা বিশ্বাস করতাম না।’ যোগ করেন তিনি।

এমবাপ্পে ২০১৭ সালে ১৮ বছর বয়সে ১৫৯.২ মিলিয়ন পাউন্ডে মোনাকো থেকে পিএসজিতে যোগ দেন। এরপর রেড অ্যান্ড ব্লুদের হয়ে তিনি ২৪৭ ম্যাচ খেলে ২০১ গোল করে রেকর্ড ভাঙলেন। তাও আবার ২৪ বছর বয়সে। তার আগে উরুগুইয়ান তারকা কাভানি ২০২০ সালে ২৯৮ ম্যাচ খেলে ২০০ গোল করে পিএসজির সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছিলেন।

এমবাপ্পে যদি তার ক্যারিয়ারে কখনো পিএসজি ছেড়ে না যান, তাহলে এই গোলের সংখ্যা কোথায় নিয়ে যাবেন সেটাই দেখার বিষয়।

রাইজিংবিডি