ঢাকারবিবার , ৫ নভেম্বর ২০২৩

১০ নভেম্বরের মধ্যে কমতে পারে মোবাইল ইন্টারনেটের দাম

নভেম্বর ৫, ২০২৩ ৯:২৭ অপরাহ্ণ । ১৮৬ জন

নির্বাচনের আর দুই মাস বাকি। এই সময় ইন্টারনেটের দাম বাড়ানো সরকারবিরোধী কাজ, চক্রান্ত—বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি দেশের টেলিকম অপারেটরদের উদ্দেশে বলেন, ‘বাংলাদেশে ব্যবসা করতে হলে দেশের জনগণের পক্ষে থাকতে হবে।’

রবিবার (৫ নভেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের প্রশাসনিক এলাকায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির প্রধান কার্যালয়ে দেশের মোবাইল অপারেটরগুলোর শীর্ষ নির্বাহীদের সঙ্গে বৈঠকে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। বৈঠকে বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার, কমিশনের কমিশনার-সহ পদস্থ কর্মকর্তা ও মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে অন্যান্য ইস্যুর পাশাপাশি সদ্য বিলুপ্ত তিন দিন মেয়াদের ইন্টারনেট প্যাকেজ নিয়ে আলোচনা হয়। আলোচনায় মন্ত্রী মোবাইল ফোন অপারেটরদের নির্দেশ দিয়েছেন ইন্টারনেটের দাম কমাতে। আগের তিন দিনের মেয়াদের প্যাকেজের দামে ইন্টারনেট প্যাকেজ গ্রাহকদের অফার করতে বলেছেন।

মোস্তাফা জব্বার, ছবি-সংগৃহীত

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী রবিবার রাতে মোবাইল ফোনে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অপারেটররা সাত দিনের মেয়াদের প্যাকেজের দাম বাড়িয়েছে। এটা তারা করতে পারে না।’ তিনি আরও বলেন, ‘১০ নভেম্বরের মধ্যে আজকের (রবিবার) বৈঠকের ফল পাওয়া যাবে।’ তিনি আশাবাদী, অপারেটররা ইন্টারনেটের দাম কমাবে।

মন্ত্রী বলেন, ‘এই সুযোগে রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকও ইন্টারনেট প্যাকেজের দাম বাড়িয়েছে। তাদেরও ইন্টারনেটের দাম কমানোর নির্দেশ দিয়েছি। বলেছি আগের দামে ইন্টারনেট দিতে।’

বৈঠকের একটি সূত্র বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছে, বৈঠকে মন্ত্রী তীব্র অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। মাস দুয়েক পরে দেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই সময়ে মোবাইল অপারেটরগুলোর ইন্টারনেটের দাম বাড়িয়ে দেওয়াকে তিনি ‘সরকারের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র’ হিসেবে দেখছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ অক্টোবর থেকে তুমুল জনপ্রিয় হওয়া সত্ত্বেও ‘গ্রাহক স্বার্থ’ বিবেচনা করে বাদ দেওয়া তিন দিন মেয়াদের ডাটা প্যাকেজ। একইসঙ্গে আরও বাদ দেওয়া হয় ১৫ দিনের ডাটা প্যাকেজও। এখন ডাটা প্যাকেজ আছে ৭ ও ৩০ দিনের এবং  আরেকটি আছে আনলিমিটেড প্যাকেজ।

বিটিআরসি সে সময় বলে, গ্রাহক অসন্তোষ দূর করতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে গ্রাহকের স্বার্থ রক্ষা পাবে। যদিও বিটিআরসিরই এক উপস্থাপনায় দেখা যায়, দেশের মোট মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে ৬৯ দশমিক ২৩ শতাংশ ব্যবহারকারী তিন দিন মেয়াদের ডাটা প্যাকেজ ব্যবহার করেন।

সরকারের  অভিযোগ, তিন দিন মেয়াদের ডাটা প্যাকেজ না থাকায় সাত দিন মেয়াদের ডাটা প্যাকেজ ও অন্যান্য প্যাকের দাম বাড়িয়েছে মোবাইল ফোন অপারেটররা। নির্বাচনের আগে মোবাইল অপারেটরগুলোর ইন্টারনেটের দাম বাড়ানোকে ভালো চোখে দেখছে না সরকার। এজন্য ইন্টারনেটের দাম কমানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাট্রিবিউন