ঢাকামঙ্গলবার , ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
  • অন্যান্য

ঐশীর জোড়া গোলে বাংলাদেশের কাছে ধরাশায়ী ভুটান

ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৪ ৯:৪৫ অপরাহ্ণ । ৪৪ জন

নারী ফুটবলে এখন পর্যন্ত ভুটানের কাছে বাংলাদেশের পয়েন্ট হারানোর উদাহরণ নেই। আজ মঙ্গলবার সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপেও সেই রেকর্ড অটুট থাকলো। বাংলাদেশ আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। লিগ পর্বের শেষ ম্যাচ ছিল শুধুই আনুষ্ঠানিকতার। সেই ম্যাচে গোল উৎসব করেছে স্বাগতিকরা। বৃহস্পতিবার ফাইনালের আগে ঐশী খাতুনের জোড়ায় ভুটানকে ৪-০ গোলে হারিয়ে বাংলাদেশের নারীরা আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিলো।

কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে কৃত্রিম আলোতে বেঞ্চের শক্তি পরখ করার জন্য আগের ম্যাচে একাদশ থেকে উমহেলা মারমা ও স্বপ্না রানী মণ্ডলকে রাখেন বাংলাদেশ কোচ। ৯ জন নতুন খেলোয়াড় নিয়ে আক্রমণও হয়েছে যথেষ্ট। ভুটানকে সেভাবে খেলতেই দেয়নি। বলতে গেলে তাদের প্রান্তে খেলা হয়েছে বেশি। তবে দুই গোলের বেশি আসেনি প্রথমার্ধে।

ম্যাচঘড়ির ১৮ মিনিটে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। বক্সের জটলার ভেতর থেকে বল এসে পড়ে নুসরাত জাহান মিতুর পায়ে। ফাঁকায় থাকা এই ফরোয়ার্ড ডান পায়ের শটে পরাস্ত করেন গোলরক্ষককে।

৩০ মিনিটে মিতুর কর্নারে ডিফেন্ডারদের মাঝে সুযোগ পেয়েই ঐশী জোরালো হেডে বল জড়িয়ে দেন জালে। গোলকিপার দিখতা শান জায়গা ছেড়ে ডান দিকে সরে বিপদমুক্ত করার চেষ্টা করেও সফল হতে পারেননি। বল তার হাতের ওপর দিয়ে জাল স্পর্শ করে দর্শকদের আনন্দের উপলক্ষ এনে দেয়।

বিরতির আগে ঐশী গোলের সুযোগ পেয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু ডিফেন্ডারদের পেরিয়ে দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া শট সরাসরি গোলকিপারের তালুতে জমা পড়ে।

দ্বিতীয়ার্ধেও বাংলাদেশের খেলার ধারায় কোনও পরিবর্তন আসেনি। আগের মতোই প্রতিপক্ষের রক্ষণে চাপ প্রয়োগ করে খেলেছে। গোলও এসেছে আরও দুটি।

৫৭ মিনিটে তৃতীয় গোল পায় বাংলাদেশ। ঐশীর পাসে গোলকিপারের সামনে থেকে ফাঁকায় কৃষ্ণা রানী শুধু বাঁ পা দিয়ে বলের দিক পরিবর্তন করে ভুটানকে আরও পিছিয়ে দেন।

৬ মিনিট পর ভুটান আবারও গোল হজম করে। ঐশী পান দ্বিতীয় গোলের দেখা। গোলকিপারকে ঠিকমতো ব্যাক পাস দিতে পারেননি এক ডিফেন্ডার, অন্য প্রান্ত থেকে দৌড়ে এসে গোলকিপার বল স্পর্শ করার আগে ঐশী লক্ষ্যভেদ করে স্বাগতিকদের বড় জয়ে ভূমিকা রাখেন।

চার গোলে পিছিয়ে থেকে ভুটান একবার বাংলাদেশের ডি-বক্সে হানা দিয়েছিল। কিন্তু গোলকিপারের দৃঢ়তায় তারা ব্যর্থ। চার গোলের পর সাইফুল বারী টিটুর শিষ্যরা ব্যবধান বাড়ানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালান। কিন্তু আর গোল হয়নি।

শেষ দিকে এসে ফ্রিকিক নিয়ে ভুটানের খেলোয়াড়দের সঙ্গে মৃদু ধাক্কাধাক্কি হয়। তবে রেফারির হস্তক্ষেপে তা বেশিদূর যায়নি।

তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার ট্রফি ধরে রাখার মিশনে সন্ধ্যা ৬টায় প্রতিপক্ষ ভারত। অন্যদিকে এবার ভুটান পয়েন্টের খাতা না খুলেই দেশে ফিরে যাচ্ছে।

বাংলাট্রিবিউন