ঢাকাবৃহস্পতিবার , ১৮ এপ্রিল ২০২৪

সিরিজ বাতিল করায় অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে খেলবেন না রশিদ!

এপ্রিল ১৮, ২০২৪ ১০:০২ অপরাহ্ণ । ৩০ জন

টেস্ট আর ওয়ানডের পর এবার আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজও স্থগিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। দেশটিতে নারী ও শিশুদের মানবাধিকারে ব্যাপক অবনতি হয়েছে জানিয়ে সিরিজটি স্থগিতের ঘোষণা দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। অস্ট্রেলিয়ার এমন সিদ্ধান্তে চটেছেন রশিদ খান।

আফগানিস্তান ক্রিকেট নিয়ে অস্ট্রেলিয়া বোর্ডের ক্রমাগত সিরিজ বাতিল ভালোভাবে নিচ্ছেন না রশিদ। এমনটা চলতে থাকলে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশ থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার হুমকিও দিয়ে রেখেছেন তিনি। রশিদের যুক্তি, যদি আমি অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে তাদের লিগে খেলতে পারি, তাহলে আফগানিস্তান দল কেনো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে পারবে না?

ক্রিকেট ভিত্তিক ভারতীয় ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফোকে রশিদ বলেন, ‘মনের মধ্যে অনেক কিছুই রয়েছে। অনেক চিন্তা মাথায় আসছে। যেমন ধরুন, যদি আমার দলের বিপক্ষে খেলতে না চান, তাহলে কেন চান যে, আমি আপনাদের দেশে গিয়ে খেলি? তাহলে তো আমার আপনাদের দেশে প্রবেশের এবং ক্রিকেট খেলার অনুমতি না থাকার কথা তাই না?’

‘আপনি আমার সতীর্থদের সঙ্গে খেলতে চান না, আর আমার সঙ্গে খেলতে চান! এই দুইয়ের মধ্যে পার্থক্য কী? এর পরও যদি আমি খেলি, তাহলে এর মানে তো আমি আমার সতীর্থদের অসম্মান করছি। দেশেরও মর্যাদাহানি করছি।’-আরো যোগ করেন রশিদ।

গেল ওয়ানডে বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফর্ম্যান্স করেছে আফগানিস্তান। পাকিস্তান, ইংল্যান্ড এবং শ্রীলঙ্কার মতো দলকে হারিয়েছে তারা। বড় দলগুলোর বিপক্ষে নিয়মিত সিরিজ খেলতে পারলে এই দলের সম্ভাবনা আরও বাড়বে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলার আক্ষেপ তাদের বেড়েই চলেছে। এতে যারপরনাই হতাশ রশিদ। যে সব বিষয়ের কারণে সিরিজ বাতিল হচ্ছে, তার জন্য ক্রিকেটকে টার্গেট করা উচিত নয় বলে মনে করেন তিনি।

রশিদ বলেন, ‘বিষয়টি খুব কষ্ট দেয়। আপনি সেরা দলগুলোর বিপক্ষে সব সময় খেলতে চাইবেন। কারণ এতে আপনার ক্রিকেটের উন্নতি ঘটবে। তাদের বিপক্ষে খেলার সুযোগ শুধু বিশ্বকাপেই পাওয়া যায়। দ্বিপাক্ষিক সিরিজও খুব খুব কম হয়। তার উপর এই ভাবে সিরিজ স্থগিত হওয়া খুব দুঃখজনক। ক্রিকেটার হিসেবে খুব বেশি কিছু করার নেই আমার। এই বিষয়টি সমাধান করা সরকারের বিষয়।’

ঢাকা পোষ্ট